উদয়ন-তন্ময় বিতর্কঃ CRA মিটিংয়ের অ‍্যাজেন্ডায় রেখেও খোলা হল না তদন্ত কমিটির রিপোর্ট

0

◆সন্দীপ দে◆

CRA (কলকাতা রেফারিজ অ‍্যাসোসিয়েশন) -এর সচিব উদয়ন হালদার ও রেফারি তন্ময় হালদারের মহা বিতর্ক এখনও চলছেই। এই দুই ব‍্যক্তিকে নিয়ে যে তিন সদস‍্যর তদন্ত কমিটি CRAতে রিপোর্ট দিয়েছিলেন, তা বুধবার সংস্থার এক্সিকিউটিভ কমিটির সভায় প্রকাশ করার কথা ছিল। বিষয়টা মিটিংয়ের অ‍্যাজেন্ডাতেও ছিল। মিটিং শুরু হয় প্রায় পৌনে চারটে নাগাদ। শেষ হয় আটটা পনেরোয়। প্রায় সাড়ে চার ঘন্টার মিটিংয়ে তদন্ত কমিটির সদস‍্যদের দেওয়া রিপোর্ট খামবন্দী হয়েই থেকে গেল। খোলা আর হল না।

উদয়ন হালদার ও তন্ময় ধরের কি বির্তক? অভিযোগ,CRA সচিব উদয়ন হালদার নাকি প্রতিভাবান ন‍্যাশনাল এলিট রেফারি তন্ময়ের কেরিয়ার নষ্ট করে দিচ্ছেন। চার মাস আগে উদয়নের বিরুদ্ধে এমন চাঞ্চল‍্যকর অভিযোগ এনে CRA সভাপতি ভোলা দত্তর কাছে দুই পাতার লিখিত অভিযোগ করে বিচার চেয়েছিলেন তন্ময়। অল ইন্ডিয়া রেফারিজ বোর্ডের তৎকালীন চেয়ারম‍্যান মাইকেল অ‍্যান্ড্রুজের সঙ্গে উদয়ন হালদারের একটি ফোনালাপে তন্ময় জানতে পারেন যে, আই লিগ,আইএসএল,ডুরান্ডে তিনি যাতে ম‍্যাচ পোস্টিং না পান তার চেষ্টা করে এসেছেন উদয়ন। সেই ফোনালাপের রেকর্ডিং CRA সকল সদস‍্যদের কাছে পৌঁছেও যায়। ভাইরাল হয়ে যায় সেই ফোনকল রেকর্ডিং। এছাড়াও তন্ময় উদয়নের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলেন।

এই মর্মে ২৮ জুলাই খবরটি প্রথম প্রকাশ করে “ইনসাইড স্পোর্টস।” খবরটি প্রকাশ হতেই CRA সহ ময়দানে হৈচৈ পড়ে যায়। ঘটনা সত‍্যতা যাচাই করতে CRA কর্তারা তখন তিন সদস‍্যর তদন্ত কমিটি তৈরি করেন। এই তদন্ত কমিটির চেয়ারম‍্যান হলেন প্রাক্তন রেফারি গৌতম কর। তাঁর সঙ্গে ছিলেন আর এক প্রাক্তন রেফারি সুপ্রিয় ভট্টাচার্য ও আইনজীবী মনোরঞ্জন গায়েন। তিনি আবার CRA সদস‍্যও।

তদন্ত কমিটির চেয়ারম্যান গৌতম কর, তন্ময় ও উদয়নকে শুনানিতে হাজির থাকার জন‍্য ২৭ অগাষ্ট মেল করে CRA তাঁবুতে হাজির থাকতে বলেছিলেন। ৯ ও ১০ সেপ্টেম্বর CRA তাঁবুতে দুই দিন ধরে তদন্ত কমিটি উদয়ন ও তন্ময়কে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। শুনানির পর চূড়ান্ত রিপোর্ট তিন মাসের মধ‍্যে জমা করবেন এমনটাই জানিয়েছিলেন গৌতম কর। তিন মাসের মধ‍্যে বন্ধ খামে রিপোর্ট জমাও করেন তিনি। CRA সভাপতি ভোলা দত্ত জানিয়েছিলেন, বন্ধ খামের রিপোর্ট খোলা হবে ইক্সিকিউটিভ কমিটির মিটিংয়ে। সকল কমিটি সদস‍্যদের সামনেই রিপোর্ট খোলা হবে। সেই বহু প্রতিক্ষিত মিটিং ছিল গতকাল (বুধবার)।

বুধবার, CRA -এর ২২ জনের এক্সিকিউটিভ কমিটির সভায় হাজির হয়েছিলেন ২০ জন। আসতে পারেননি শুধু দুই সদস‍্য তরুণ দাস ও ত্রিদিব হাজরা। মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অভিযুক্ত উদয়ন হালদারও। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা একাধিক অভিযোগ নিয়ে সোচ্চার হন এক্সিকিউটিভ কমিটির অধিকাংশ সদস‍্যরা। মিটিংয়ের শেষ অ‍্যাজেন্ডার মিসলেনিয়াসের আগেই ছিল তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রকাশ বিষয়টি। কিন্তু বন্ধ খামের রিপোর্ট খোলার আগেই আইএফএ এর গভর্নিং বডির সদস‍্য (প্রসঙ্গত,CRA এক্সিকিউটিভ কমিটিতে আইএফএ-এর একজন গভর্নিং বডির সদস‍্য থাকাটা বাধ‍্যতামূলক) চিত্তরঞ্জন দাস বলে ওঠেন,আলোচনার মধ‍্যে যদি সমস‍্যা মেটানো যায় তাহলে এর থেকে ভাল কিছু হয় না। প্রথম দিকে কমিটির সদস‍্যরা নিমরাজি থাকলেও পরে মেনে নেন।

এই ব‍্যাপারে CRA সভাপতি ভোলা দত্তকে প্রশ্ন করা হলে তিনি “ইনসাইড স্পোর্টস”-এর এই প্রতিবেদককে জানান,”আইএফএ-এর গভর্নিং বডির সদস‍্য চিত্তরঞ্জন দাস মিটিংয়ে বলেন,”উদয়ন ও তন্ময়কে একসঙ্গে বসিয়ে আলোচনার মাধ‍্যমে যদি সমস‍্যা মিটিয়ে ফেলা যায় তাহলে এর থেকে ভাল কিছু হয় না। চিত্তবাবু আমাদের কাছে চার দিন সময় চেয়েছেন। তাঁর প্রস্তাব আমাদের কমিটি মেম্বাররাও মেনে নিয়েছেন। সেই জন‍্যই তদন্ত কমিটির রিপোর্ট খাম আর খুলিনি।”

আইএফএ-এর গভর্নিং বডির সদস‍্য চিত্তরঞ্জন দাসকে এই বিষয়ে জানতে চায়লে তিনি বলেন,”আমার মনে হয়েছে,আলোচনার মধ‍্যে যদি সমস‍্যার সমাধান হয় তাহলে মিটিয়ে নেওয়া ভাল। সেই জন‍্যই সভায় এই প্রস্তাবটা দিয়েছি।”

এমন ঘটনার ফলে এখন এই রিপোর্ট খাম না খোলার জন‍্য একাধিক প্রশ্ন উঠছে। যেমন,
(১) তিন সদস‍্যর তদন্ত কমিটির রিপোর্টে কি এমন ছিল যে, বন্ধ খামটা খোলাই হল না? তাহলে কি ধরে নিতে হবে ওই রিপোর্ট উদয়নের বিরুদ্ধে এমন কিছু ছিল যা প্রকাশ হলে আর কোনও আলোচনার রাস্তা খোলা থাকত না?

(২) রিপোর্ট খাম খুললেই কি উদয়নের শাস্তি আটকানো যেতো না? সেই জন‍্যই কি খাম খোলা হল না? নাকি তন্ময় ধরের বিরুদ্ধে খারাপ কিছু লেখা ছিল সেই রিপোর্টে?

(৪) আলোচনার মধ‍্যেই যদি সমস‍্যার সমাধান করা যেত, তাহলে তিন মাস আগে কেন তদন্ত কমিটি গড়া হয়েছিল? কেন অনেক আগেই আলোচনার মধ‍্যে উদয়ন-তন্ময় বিতর্ক মেটানো যায়নি? হঠাৎ এখন ‘আলোচনার মাধ‍্যম’টা অতি সক্রিয় হয়ে উঠল কেন?

(৫) রিপোর্ট খাম না খোলা মানে তো তিন সদস‍্যর তদন্ত কমিটিকে অসম্মান করা। এটা তো তদন্তর নামে চূড়ান্ত প্রহসন।

(৬) কেন আড়াল করা হচ্ছে তদন্ত কমিটির রিপোর্ট খাম? কার জন‍্য,কাকে আড়াল করা হচ্ছে। ঘটনার স্বচ্ছতা আনতে হলে রিপোর্ট খাম খোলা হোক।

(৭) রিপোর্টে যদি CRA সচিব উদয়ন হালদার দোষী প্রমাণিত হয় তাহলে তাঁর দৃষ্টান্তমৃলক শাস্তি হওয়া উচিত। যাতে ভবিষ্যতে CRA সচিবের চেয়ারে বসে কেউ কোনও রেফারির কেরিয়ার নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে পারবেন না। আর যদি তন্ময় ধর দোষী প্রমাণিত হয় তাহলে তন্ময়েরও কড়া শাস্তি হওয়া উচিত। যাতে কোনও রেফারি CRA সচিব বা কোনও পদাধিকারীর বিরুদ্ধে এমন জঘন‍্য অভিযোগ করার সাহস দেখাতে না পারেন।

(৮) রিপোর্ট খাম খুলে ঘটনার সত‍্যটা সামনে আনুন CRAকর্তারা। সবাই জানুক আসল ঘটনা। CRA কর্তারা রিপোর্ট খাম প্রকাশ করতে এত ভয় পাচ্ছেন কেন?

উদয়ন-তন্ময় বিতর্ক নিয়ে বাংলার ফুটবল মহলে CRA-এর ভাবমূর্তি খারাপ হয়েছে। সেই ভাবমূর্তি ফেরাতে CRA কর্তারা কি আদৌ আগ্রহী? আপনারা যদি রিপোর্ট খাম নাই খুলতে চান তাহলে তদন্ত কমিটি গড়েছিলেন কেন? এটা তো তদন্ত কমিটিকে চূড়ান্ত অপমান করছেন? “ইনসাইড স্পোর্টস”-এর এই প্রতিবেদকের প্রশ্নের উত্তরে CRA সভাপতি ভোলা দত্ত এবার চুপ করেই থেকে গেলেন। মুখ বন্ধ রাখলেন, বন্ধ রিপোর্ট খামের মতো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here